ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে, বিএনপিকেঃ কাদের

বিএনপি ফাঁদে পড়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি এখন ফাঁদে পড়ে গেছে। ওই যে একটা গান আছে, ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে। এই ফাঁদ থেকে যে কিভাবে বেরুবে?’
আজ শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ওবায়দুল কাদের তিনটি সড়কের উন্নয়ন কাজ উদ্বোধন করেন। এরপর আয়োজিত এক সভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

Advertisement
বিএনপিকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এক এক দিন এক এক কথা বলে। সকালে বলে এক কথা, বিকেলে বলে এক কথা। যাকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বানিয়েছেন তিনিও দণ্ডপ্রাপ্ত। দণ্ডপ্রাপ্ত আবার পলাতক। সাহস থাকে তো বাংলাদেশে আসুন। জেল-জুলুম, রাজপথ যারা মোকাবিলা করতে পারে না, এই বাংলার মাটিতে তাঁরা কোনোদিনও নেতা হতে পারবেন না। দুই দুইবার দণ্ডিত। একবার সাত বছর। আরেকবার ১০ বছর। গেছে মুচলেকা দিয়ে, রাজনীতি করবেন না। আছে কাগজ। আর জীবনে রাজনীতি করবেন না। এই মুচলেকা দিয়ে বিদেশে চলে গেছেন। পলাতক। এতদিন পরে এ কি শুনি মন্তরার মুখে। এখন বলে রাজনৈতিক আশ্রয়।’



ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘বিএনপি নেতারাও আজকে একটা প্রশ্ন করে যে, খন্দকার মোশাররফ সাহেব, তারেক জিয়া তাঁকে যত চেষ্টাই করুক, সরকার আনতে পারবে না। তার মানে হচ্ছে, উনি দেশে থাকবেন না। তার মানে হচ্ছে, বিএনপিও চায় না তারেক জিয়া দেশে আসুক। বিএনপির এখন আর আন্দোলন নেই। এখন আছে নালিশ। নয়াপল্টনে ঘরের মধ্যে বসে নালিশ। আর ওই বিদেশি দূতাবাসে।’



এ সময় আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যা কাজ হয়েছে, সেই কাজের সঙ্গে ভালো আচরণ যোগ করে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় হবে ইনশাল্লাহ।



কেউ ঠেকাতে পারবেন না। মশারির মধ্যে মশারি খাটাবেন না। ঘরের মধ্যে ঘর তুলবেন না। দলের একটা সিট কমে গেলে এই এক সিটের জন্যেও সমস্যা হতে পারে। নির্বাচনের আর ছয়-সাত মাস বাকি। আপনারা কেউই ক্ষমতার জোর দেখাবেন না। এটা আমার বিশেষ অনুরোধ। এই যে সুন্দর সুন্দর পোস্টার, বিলবোর্ড, ব্যানার আর গেট- মনে রাখবেন বাগানের ফুল শুকিয়ে যাবে। মনে রাখবেন, এই পোস্টার, ব্যানার এখন আছে, কাল সকালে আর অনেকগুলোই খুঁজে পাওয়া যাবে না। বিলবোর্ডের ছবি মুছে যাবে। সুন্দর সুন্দর, ডিজিটাল চেহারা নষ্ট হয়ে যাবে। এগুলো সাময়িক। এই যে আমার কত ছবি, এই ছবি কি থাকবে? থাকবে না। ব্যানারের ছবি মুছে যাবে, পোস্টারের ছবি ছিড়ে যাবে, বাগানের ফুল শুকিয়ে যাবে। পাথরে লিখ নাম ক্ষয়ে যাবে, হৃদয়ে লিখ নাম রয়ে যাবে।’



এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা হচ্ছে বলেও তিনি দাবি করেন। বিএনপি চল্লিশ টাকার উন্নয়নও করেনি বলেও ওবায়দুল কাদের মন্তব্য করেন। এই তিনটি সড়ক নির্মাণে ১৪০ কোটি টাকা ব্যয়ের কথা সভা থেকে জানা যায়। আড়াইহাজার উপজেলার তিনটি রাস্তার ৭২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের কাজ নির্বাচনের আগেই সম্পন্ন করা হবে বলে দাবি করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।



উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শাহাজালালের সভাপতিত্বে সভায় আরও কথা বলেন, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু।

Facebook Comments