রিক্সাওয়ালার প্রেম

Spread the love

লেখকঃ লিমন আহমেদ

মেয়ে- ঐ রিকসা যাবে..???
ছেলে- জ্বি যামু। কোথায় যাবেন…..???
মেয়ে- ফেঞ্চুগঞ্জ।
ছেলে- যাবো।যাবেন..???
মেয়ে- হুম যাবো…….. কত দিতে হবে..???
ছেলে – যত দিলে পোষানো যাবে…
মেয়ে – মানে….???
ছেলে – যত প্রতিদিন দেন।আর আমাকে ততই দিয়েন…
মেয়ে- ও আচ্ছা চলেন…??
ছেলে – আচ্ছা মেডাম একটা কথা কইতাম…???
মেয়ে- হুম বলেন কি?? বলতে চান…..
ছেলে- আপনি কি প্রতিদিনই ফেঞ্চুগঞ্জ যান..???
মেয়ে- হুম। ঐখানে কলেজে পড়ি কিন্তু কেন…???
ছেলে- তাহলে তো প্রতিদিনই আপনাকে কস্ট করে রিকসা খুজতে হয়..??
মেয়ে- হুম। তা তো হয় ই…
ছেলে -তাহলে মেডাম এখন থেকে আমি প্রতিদিন আপনার জন্য অপেক্ষা করবো।সমস্যা হবে না তো….??
মেয়ে- না।তবে ভাড়া কিন্তু একই দিবো।
ছেলে- সমস্যা নাই। আপনার নামটা মেডাম..???
মেয়ে- আমার নাম ( সালুয়া।) আপনার..?? আর আপনার ফোন নাম্বারটা দেন। যদি না যাই বা দেরি হলে কল করে বলে দিবো…..
ছেলে- অামার নাম সাফা। ওকে নাম্বারটা নেন…..
সালুয়া : তাহলে বলেন….
সাফা : ০১৬……………
এভাবে শুরু হয় আমাদের ১ম দিনটা। তার পর প্রতিদিন সালুয়াকে নিয়ে যাওয়া। তারপর একদিন সে বলল শুধু কলেজে নিলেই হবে না।এখন থেকে বিকালে আমাকে আবার বাড়িতে ছেড়ে আসতে হবে….
শুরু হলো আমাদের কাছাকাছি আসা। একরকম ভালোই বন্ধু হয়ে গেছি আমরা।
এখন সালুয়া যেখানেই যায় আমার রিকশা দিয়ে আমাকে নিয়ে যায়। মাঝে মাঝে এমনি ফোন দিয়ে জিঞ্জেস করে কি খেয়েছি কি করি ইত্যাদি খবর নেয়।
তার পর আমিও ওর খোজ খবর নিতাম আর তাকে বলতাম। আমি এতো গরীব আর আপনি আমার মতো গরীবের সাথে কথা বলেন। সময় পার করেন..??
আপনার এ গরীবকে ঘৃনা হয় না।
সে বলল ঘৃনার কি অাছে সবাই তো মানুষ।এখানে টাকা পয়সার ব্যবধান করছেন কেন…??
সে জানতো আমি ইন্টারমিডিয়েট পাস।ঐ গ্রামে মা বাবাকে নিয়ে থাকি…..বড় একটা বোনও আছে।
মাঝে মাঝে তার বাসায় নিয়ে আমাকে নাস্তা করাতো…
অনেকদিন আমার বাড়িতে আসতে চেয়েছে কিন্তু নানা অজুহাতে মুক্তি নিয়েছি।
একদিন তাকে কলেজে নেয় নাই। সে কলের পর কল দিলো। আমি রিসিব করে বললাম আমি খুব অসুস্থ অাসতে পারবো না।
তাকে অন্য রিকসা নিয়ে চলে যেতে বললাম।কিন্তু সে দেখা করার জোর করলো।
আমিও একটা গার্ডেনে আসতে বললাম। হালকা ভালো কাপড় পড়ে ১রাশি গোলাপ নিয়ে তাকে প্রপোজ করলাম। সে বলল আপনি না অসুস্থ। আমি বললাম আপনাকে প্রপোজ করার জন্য মিথ্যে বলে এনেছি। সে জন্য সরি….
সে কিছু না বলে চলে গেল। রাতে ফোন দিয়ে সে বলল সেও আমাকে ভালবাসে…
কিন্তু সে যখন তার কলেজে একটা অনুষ্ঠানে সিনিয়ার ভাইদের সাথে আমাকে দেখলো তখন চমকে গেল।
আমাকে জিঞ্জেস করলো নানা প্রশ্ন……
আমি সব সত্যি বললাম যে আমি এ কলেজের লাস্ট ইয়ারের ছাত্র । তোমার একটা ছবি আমি একটা ফাইলে দেখেছিলাম। তখন তোমাকে ভালবেসে ফেলি…তাই রিকসাওয়ালা সেজেছি।
তারপর থেকে আমার সাথে সে কথা বলে না..।।
অবশেষে মা,,,
মা তুমি কিছু করো।তার বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব দাও।
মা বিয়ের প্রস্তাব দিলো। সে একটা শর্ত দিলো বিয়ে করলেও.। সপ্তাহে একদিন রিকসাওয়ালা সেজে তাকে নিয়ে ঘুরাতে হবে…….
এখন আমি আমার দেশের রানীর রিকসাওয়ালা….
ভাই যারারা পোস্টটি পড়লেন, এমন ঘটনা গল্পে অার ফিল্মে হয়ে থাকে,বাস্তবে হয়না, এমন হাজার গল্প পড়ে,দেখে অামরা ফরহাদ, মজনু ‘দের মত হওয়ার চেষ্টা করি। গল্পে রাজা কিন্তু প্রতিষ্ঠিত, বাবার বিজনেজ দেখে, অাপনি, অামি বা এরকম হাজারও ছেলেরা যারা ছাত্র, অপ্রতিষ্ঠিত তারা এমন করে নিজের সামনের ভবিষ্যৎ কে সত্যি এই রিক্সাওয়ালার মত করি
(সমাপ্ত)

What is Your Opinion?